এএসআইকে চড় মারা সেই ওসি প্রত্যাহার করা হয়েছে।

এএসআইকে চড় মারা সেই ওসি প্রত্যাহার করা হয়েছে।

এএসআইকে চড় মারা সেই ওসি প্রত্যাহার করা হয়েছে।

এএনবিঃ কর্মরত অবস্থায় প্রকাশ্যে সহকর্মী এক সহকারী উপপরিদর্শককে (এএসআই) চড় মারার ঘটনায় অবশেষে প্রত্যাহার করা হলো বরগুনার বামনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইলিয়াস আলীকে। মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) দুপুরে তদন্ত কমিটির সুপারিশে তাকে বামনা থানা থেকে প্রত্যাহার করা হয় বলে জানিয়েছেন বরগুনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও তদন্ত কমিটির প্রধান মো. মফিজুল ইসলাম। এর আগে গত সোমবার ভুক্তভোগী ওই এএসআইকেও বামনা থানা থেকে প্রত্যাহার করে বরগুনা পুলিশ লাইন্সে সংযুক্ত করা হয়।

গত শনিবার বামনায় পুলিশের গুলিতে নিহত মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদের সহযোগী শাহেদুল ইসলাম সিফাতের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন করা হয়। পরে পুলিশি বাধায় সেই মানববন্ধন পণ্ড হয়ে যায়। এ সময় কর্তব্যরত ওই এএসআইকে প্রকাশ্যে চড় মারেন বামনা থানার ওসি ইলিয়াস হোসেন।পরে চড় মারার সেই ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ওসি ইলিয়াস হোসেনের সমালোচনা হয়। পরে এই ঘটনা তদন্তে কমিটি করা হয়। সেই কমিটির সুপারিশে ওসিকে প্রত্যাহার করা হলো।

তদন্ত কমিটির প্রধান মো. মফিজুল ইসলাম বলেন, এএসআইকে চড় মারার ঘটনা তদন্ত করে আমরা সত্যতা পেয়েছি। তদন্ত প্রতিবেদনে বামনা থানার ওসি ইলিয়াছ আলী তালুকদারকে প্রত্যাহারসহ বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণেরও সুপারিশ করি। এরই পরিপ্রেক্ষিতে ওসি ইলিয়াছ আলী তালুকদারকে থানা থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইন্সে সংযুক্ত করা হয়েছে। বরিশাল রেঞ্জ ডিআইজি অফিসের এক চিঠির মাধ্যমে তাকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।