জাতিসংঘের নেতৃত্বে উইঘুর ‘নির্যাতনের’ পর্যবেক্ষণ চায় ফ্রান্স

জাতিসংঘের নেতৃত্বে উইঘুর ‘নির্যাতনের’ পর্যবেক্ষণ চায় ফ্রান্স

জাতিসংঘের নেতৃত্বে উইঘুর ‘নির্যাতনের’ পর্যবেক্ষণ চায় ফ্রান্স

এএনবি ঃ চীনের উইঘুর মুসলিমদের ওপর যে নির্যাতন চলছে, তা খতিয়ে দেখতে জাতিসংঘের নেতৃত্বে একটি পর্যবেক্ষণ চায় ফ্রান্স। মঙ্গলবার এক ঘোষণায় এ আহ্বান জানান দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী কিন-ইয়াইভস লে ড্রিয়ান।

দ্য নিউ আরবের বরাতে জানা যায়, ফ্রান্সের পার্লামেন্টে মঙ্গলবার লে ড্রিয়ান চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বক্তব্যের জবাবে এসব কথা বলেন।

লে ড্রিয়ান বলেন, তারা বলছে, আমার বক্তব্য ভিত্তিহীন। তাহলে আমি প্রস্তাব দিচ্ছি জাতিসংঘের নেতৃত্বে নিরপেক্ষ একটি পর্যবেক্ষক দল চীনে পাঠানো হোক। তারা স্বচক্ষে দেখে আসুক সেখানে কী হচ্ছে।

ফ্রান্সের ডানপন্থী ও বিশেষজ্ঞরা বলছেন, চীনের জিনজিয়াং প্রদেশের ১০ লাখেরও বেশি উইঘুর মুসলিমকে ক্যাম্পের মধ্যে আটক করে রাখা হয়েছে। সেখানে তাদের ওপর চলছে অমানবিক শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন।

গত সপ্তাহে ফরাসি পার্লামেন্টে লে ড্রিয়ান সংখ্যালঘু উইঘুরদের ওপর বিভিন্ন অত্যাচার হচ্ছে উল্লেখ করে বলেন, উইঘুরদের ক্যাম্পে বন্দী করে রাখা হয়েছে। কোনো কারণ ছাড়াই তাদের গুম করা হচ্ছে। জোরপূর্বক কাজ করানোর পাশাপাশি তাদের বিভিন্ন স্থাপনাগুলো নষ্ট করে দেয়া হচ্ছে।

ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এসব অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, তিনি যা বলছেন, তা সব মিথ্যা। জিনজিয়াং প্রদেশে কোনো মানবাধিকার লঙ্ঘন করা হচ্ছে না। সেখানে মূলত উগ্র সন্ত্রাসী ও বিচ্ছিন্নতাবাদীদের বিরুদ্ধে কাজ করে যাচ্ছে চীনা প্রশাসন।

এরপর মঙ্গলবার চীনা পররাষ্ট মন্ত্রণালয়ের এসব বক্তব্যের জবাব দেন লে ড্রিয়ান। তিনি তার বক্তব্যে উইঘুরদের ওপর অত্যাচার ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের তীব্র নিন্দা করেন।