দিনাজপুরে নতুন আরো ২৩ জনসহ জেলায় মোট করোনায় আক্রান্ত ৬৯৮ জন নতুন ২৫ জনসহ এ পর্যন্ত সুস্থ ৩৭৫

দিনাজপুরে নতুন আরো ২৩ জনসহ জেলায় মোট করোনায় আক্রান্ত ৬৯৮ জন নতুন ২৫ জনসহ এ পর্যন্ত সুস্থ ৩৭৫

দিনাজপুরে নতুন আরো ২৩ জনসহ জেলায় মোট করোনায় আক্রান্ত ৬৯৮ জন নতুন ২৫ জনসহ এ পর্যন্ত সুস্থ ৩৭৫


এএনবি মাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর প্রতিনিধি ঃদিনাজপুরে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ২৩ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলেন ৬৯৮ জন। একই সময়ে নতুন ২৫ জনসহ এ পর্যন্ত ৩৭৫ জন সুস্থ হয়ে বাড়ী ফিরেছেন। আর এ পর্যন্ত ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। 
দিনাজপুর সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুল কুদ্দুছ জানান, শুক্রবার (৩ জলাই) রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত আগের ২৪ ঘন্টায় জেলায় নতুন করে আরো ২৩ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগির সংখ্যা দাড়ালো ৬৯৮ জনে। আর নতুন ২৫ জনসহ এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৩৭৫ জন। এ পর্যন্ত ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। 
সিভিল সার্জন জানান, আক্রান্ত ৬৯৮ জনের মধ্যে সদর উপজেলায় ২৩২ জন (মৃত ৩ জনসহ), বিরলে ৪৮ জন, বোচাগঞ্জে ২২ জন (মৃত দুইজনসহ), কাহারোলে ২৫ জন (মৃত দুইজনসহ), বীরগঞ্জে ২৪ জন, খানসামায় ৩৬ জন, চিরিরবন্দরে ৬২ জন (মৃত ৩ জনসহ), পার্বতীপুরে ৫৭ জন (দুইজন মৃতসহ), ফুলবাড়ীতে ২৩ জন (মৃত একজনসহ), বিরামপুরে ৮৫ জন, নবাবগঞ্জে ৩৪ জন, হাকিমপুরে ৭ জন ও ঘোড়াঘাটে ৪৩ জন (মৃত একজনসহ)। 
অপরদিকে সুস্থ ৩৭৫ জনের মধ্যে দিনাজপুর সদর উপজেলায় ১১৩ জন, বিরলে ৩৭ জন, বোচাগঞ্জে ১৯ জন, কাহারোলে ১২ জন, বীরগঞ্জে ১৯ জন, খানসামায় ১১ জন, চিরিরবন্দরে ১৭ জন, পার্বতীপুরে ৩৪ জন, ফুলকাড়ীতে ১৭ জন, বিরামপুরে ৩২ জন, নবাবগঞ্জে ২৭ জন, হাকিমপুরে ৫ জন ও ঘোড়াঘাট উপজেলায় ৩২ জন। 
সিভিল সার্জন জানান, এ পর্যন্ত ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ৪ জন, বোচাগঞ্জে দুইজন, কাহারোলে একজন, বীরগঞ্জে একজন, চিরিরবন্দরে দুইজন, পার্বতীপুরে দুইজন, ফুলবাড়ীতে একজন ও ঘোড়াঘাট উপজেলায় একজন। তিনি জানান, দিনাজপুর জেলায় এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে মৃত্যুবরণ করেছে ১৪ জন। আর এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করেছে ১৭ জন।
গত ২৪ ঘন্টায় ৬১টি নমুনাসহ এ পর্যন্ত ৭০১৩টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। আর এ পর্যন্ত পরীক্ষা করা হয়েছে ৬৮১১টি নমুনা। এছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় ১১৫টিসহ এ পর্যন্ত ১৩১৪২ জনকে হোম কোয়ান্টোইনে নেয়া হয়েছে। আর বর্তমানে হোম আইনোলেশনে ২৯০ জন, প্রাতিষ্ঠানিক আইনোলেশনে রয়েছে ৪ জন, হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে ১৫ জন ও এ পর্যন্ত ১৪ জনের মৃত্যু বলে জানান সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুল কুদ্দুছ।