দেশে কখন কী ঘটে বলা যায় না :ওবায়দুল কাদের

দেশে কখন কী ঘটে বলা যায় না :ওবায়দুল কাদের

দেশে কখন কী ঘটে বলা যায় না :ওবায়দুল কাদের

এএনবি ঃ দলের নেতা-কর্মীদের ক্ষমতার দাপট না দেখানোর জন্য সতর্ক করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বাংলাদেশে কখন কী ঘটে বলা যায় না। যদি ঐক্যকে গুরুত্ব না দিয়ে নিজেদের মধ্যে কলহ-কোন্দলে লেগে থাকেন, তাহলে দুঃসময়ে প্রতিপক্ষ আঘাত হানতে পারে।

আজ বৃহস্পতিবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমউ) স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) আয়োজিত জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় নিজ সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে তিনি এসব কথা করেন।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ক্ষমতা চিরস্থায়ী নয়। সারাজীবন ক্ষমতায় থাকার কথা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভাবেন না। আমরাও ভাবি না। যদি ঐক্যকে গুরুত্ব না দিয়ে নিজেদের মধ্যে কলহ-কোন্দলে লেগে থাকেন, তাহলে দুঃসময়ে প্রতিপক্ষ আঘাত হানতে পারে। তাছাড়া বাংলাদেশে কখন কী ঘটে বলা যায় না। চোখের পলকে ১৫ আগস্ট ও ২১ আগস্ট ঘটে গেছে। তাই ক্ষমতার দাপট দেখাবেন না। নয়তো পরবর্তীতে প্রতিপক্ষ প্রতিশোধ নেবে।

হত্যা হত্যাকে ডেকে আনে উল্লেখ করে তিনি বলেন, জিয়াউর রহমান যদি বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত না থাকতেন এবং সেটার বিচার করতেন, তাহলে আরেকটি খুনি চক্র জিয়াউর রহমানকে হত্যা করতে পারতো না। যে বুলেট শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানাকে এতিম করেছে সেই বুলেট খালেদা জিয়াকে বিধবা করতো না।

সেতুমন্ত্রী বলেন, দেশে এখন ৯০টির বেশি সেন্টারে করোনা পরীক্ষা হচ্ছে। যা নমুনা পরীক্ষায় সক্ষমতা অর্জিত হয়েছে বলে প্রমাণ করে। এ ছাড়া প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিতে জেলা পর্যায়ের হাসপাতালের সক্ষমতা বাড়ানো হয়েছে। আগে থেকেই ছিল কমিউনিটি ক্লিনিক। নতুন করে প্রতিটি জেলায় আইসিইউ কমপ্লেক্স স্থাপনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

করোনাভাইরাসের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে তিনি বলেন, সংক্রমণ বর্তমানে ঊর্ধ্বমুখী ট্রেন্ডে না থাকলেও নিম্নমুখী বলা যাচ্ছে না। তাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে কোনোভাবেই শৈথিল্য না দেখিয়ে আরো সতর্ক হতে হবে।

আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য দেন- বিএসএমএমইউ উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া, বিএমএর সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, স্বাচিপের কেন্দ্রীয় সভাপতি ডা. ইকবাল আর্সলান, সাধারণ সম্পাদক ডা. এমএ আজিজ প্রমুখ।