প্রথম ৩জনের করোনা শনাক্ত বিরামপুর উপজেলায় ।

প্রথম ৩জনের করোনা শনাক্ত বিরামপুর উপজেলায় ।

প্রথম ৩জনের করোনা শনাক্ত বিরামপুর উপজেলায় ।


মাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর প্রতিনিধি \ দিনাজপুরে গত ২৪ ঘন্টায় বিরামপুর উপজেলায় নতুন আরো ৩ জন করেনা রোগি শনাক্ত হয়েছেন। এ নিয়ে দিনাজপুর জেলায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাড়িয়েছে ৪১ জনে। এছাড়া ৬ জন সুস্থ, মৃত্যু হয়েছে একজনের ও হোম আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে ৩১ জনকে।  
দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুল কুদ্দুস শনিবার (৯ মে) সন্ধ্যা ৬টায় সিভিল সার্জনের ফেসবুকে দেয়া এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে গত ২৪ ঘন্টায় জেলার বিরামপুর উজেলায় নতুন আরো ৩ জন করোনায় আক্রান্তের খবরটি নিশ্চিত করেন। এ নিয়ে দিনাজপুরে করোনায় (কোভিট-১৯) প্রমাণিত রোগির সংখ্যা ৪১ জন হলো। আক্রান্ত ৪১ জনের মধ্যে পুরুষ ৩১ জন নারী ৮ জন ও শিশু দুইজন। 
সিভিল সার্জন জানান, এ পর্যন্ত জেলার ১৩টি উজেলার মধ্যে ১১টি উপজেলায় ৪১ জন করোনা আক্রান্ত রোগি শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে সদর উপজেলায় ১০ জন (মৃত একজনসহ), কাহারোলে ৭ জন, বিরলে দুইজন, বোচাগঞ্জে দুইজন, পার্বতীপুরে ৫ জন, ফুলবাড়ীতে একজন, নবাবগঞ্জে ৪ জন, হাকিমপুরে দুইজন, ঘোড়াঘাটে ৪ জন, চিবিরবন্দরে একজন ও বিরামপুর উপজেলায় ৩ জন রয়েছে। আর সুস্থ হয়েছেন ৬ জন। যার মধ্যে সদর উপজেলায় দুইজন, ফুলবাড়ীতে একজন, পার্বতীপুরে একজন, নবাবগঞ্জে একজন ও কাহারোল উপজেলায় একজন। এ পর্যন্ত হোম আইসোলেশনে প্রেরণ করা হয়েছে একজনকে, দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে দুইজনকে ও একজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানান সিভিল সার্জন।
সিভিল সার্জন ডা. আব্দুল কুদ্দুস আরো জানান, এ পর্যন্ত ১০২৩টি নমুনা পরীক্ষার জন্য ল্যাবেরটরীতে প্রেরণ করা হয়েছে। এর মধ্যে ফলাফল এসেছে ৯৪৬টি নমুনার। ৯ মে শনিবার ৪৬টি নমুনার ফলাফল এসেছে যার মধ্যে ৩ জনের নমুনায় করোনা পজিটিভ ও বাকী ৪৩টি নমুনার ফলাফল নেগেটিভ এসেছে। ৯ মে শনিবার ৭৯টি নমুনা পরীক্ষার জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজের আরটি পিসিআর ল্যাবেরটরীতে প্রেরণ করা হয়েছে। 
এদিকে দিনাজপুর জেলায় গত ২৪ ঘন্টায় ১০৩ জনসহ এ পর্যন্ত ৬১৫৪ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে প্রেরণ করা হয়েছে। আর এ পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৪২৮৮ জন এবং বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন ১৮৬৬ জন। এছাড়া এ পর্যন্ত প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে প্রেরণ করা হয়েছে ২১১ জনকে এবং প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন হতে ১০৪ জন ছাড় পেয়েছেন বলে জানান সিভিল সার্জন ডা. আব্দুল কুদ্দুস।
উল্লেখ্য, দিনাজপুরে গত ১৫ এপ্রিল মঙ্গলবার প্রথম ৭ জন করোনা রোগি শনাক্ত হয়। ১৬ এপ্রিল বুধবার একজন, ১৭ এপ্রিল বৃহস্পতিবার একজন, ১৮ এপ্রিল শুক্রবার একজন, ২০ এপ্রিল রবিবার একজন, ২১ এপ্রিল মঙ্গলবার দুইজন, ২৫ এপ্রিল শনিবার একজন, ২৭ এপ্রিল সোমবার হাকিমপুরে একজন, ২৯ এপ্রিল বুধবার ঘোড়াঘাটে একজন, ৩০ এপ্রিল বৃহস্পতিবার হাকিমপুর উপজেলায় আরো একজন, ২ মে শনিবার কাহারোলে ৩ জন, ৩ মে রবিবার পার্বতীপুরে একজন, ৫ মে মঙ্গলবার ৭ জন (কাহারোলে ৩ জন, পার্বতীপুরে ৩ জন ও নবাবগঞ্জ উপজেলায় একজন), ৬ মে বুধবার দিনাজপুর সদর উপজেলায় পৌর শহরে দুইজন, ৭ মে বৃহস্পতিবার ৫ জন, ৮ মে শুক্রবার বিরল উপজেলায় দুইজন ও সর্বশেষ ৯ মে শনিবার বিরামপুর উপজেলায় আরো ৩ জন করোনা আক্রান্ত রোগি শনাক্ত হয়।