সুপার সাইক্লোন আম্ফানের আঘাতে হাড়িভাঙ্গা আম চাষিদের স্বপ্ন তছনছ

সুপার সাইক্লোন আম্ফানের আঘাতে হাড়িভাঙ্গা আম চাষিদের স্বপ্ন তছনছ

সুপার সাইক্লোন আম্ফানের আঘাতে হাড়িভাঙ্গা আম চাষিদের স্বপ্ন তছনছ


এএনবি আসাদুজ্জামান আফজাল রংপুর।
সুপার সাইক্লোন আম্ফানের আঘাতে হাড়িভাঙ্গা আম চাষিদের স্বপ্ন তছনছ করে দিয়েছে। ঝাড়ের কারণে অধিকাংশ আমই ঝরে পড়েছে। ফলে আমা ছাষিদের মাথায় হাত পড়েছে। অথচ সুস্বাদু এই আম জুনের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে বাজারে পাওয়ার কথা ছিল। তবে কৃষি বিভাগ বলছে ৫ শতাংশের বেশি ক্ষতি হবেনা। তবে চাষিদের দাবি ক্ষতির পরিমান ৭০ শতাংশ ছাড়িয়ে যাবে। এছাড়া বোরো ধানসহ অন্যান্য ফসল আক্রান্ত হয়েছে ২ হাজার ৫৫৯ হেক্টর। আম চাষিদের সাথে কথা বলে জানা গেছে করোনার কারণে কীটনাশক সংকট শ্রমিকদের না থাকায় পরিচর্যার অভাব কৃষি বিভাগের পরামর্শ থেকে বঞ্চিত হওয়া হারিড়ভাঙ্গা আমের ন্যায্যমূল্য প্রাপ্তি নিয়ে শঙ্কা ছিল। তার ওপর ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের আঘাতে লন্ডভন্ড হয়ে গেছে শত শত আম বাগান। চাষিরা জানান তারা প্রতিবছর শুধু হাড়িভাঙ্গা আম বিক্রি করে ২০০ কোটি টাকার ওপর আয় করেন। এবার ঝড়ের কারণে অধিকাংশ বাগানই আম শূন্য হয়ে পড়েছে। আমচাষি শাহাজান বকুল, শামছুজ্জামান, হাবিবুর রহমানমসহ বেশ কয়েকজন আম চাষি জানান ঝড়ের করণে তাদের সকলের আশা আকাঙ্খা ধুলিস্মাৎ হয়ে গেছে। ঝড়ে বাগান আম শূন্য হয়ে পড়েছে। হাড়িভাঙ্গা ছাড়াও ফজলি কেরোয়া এছাহাক তেলি ছাইবুদ্দিন আশ্বীনী সাদা নেংড়া কালা নেংড়া কলিকাতা নেংড়া মিশ্রী ভোগ গোপাল ভোগ, আ¤্রপলি, সাদ রচি চোচা আটি জাতীয় আমের ক্ষতি হয়েছে প্রচুর। তবে হাড়িভাঙ্গা আমের ক্ষতি বেশি হয়েছে। এবার হাড়িভাঙ্গা উৎপাদনের সম্ভবনা ছিল পনের হাজার মেট্রিক টনের ওপর। কিন্তু আম্ফানের আঘাতে কতটুকু আম ঘরে তুলতে পাবে তা নিয়ে সন্দিহান হয়ে হড়েছে আম চাষিরা। এছাড়া ঘুর্ণি ঝড় আম্ফানের তান্ডবে ১ হাজার ৯৩ হেকটার বোরো ধান, ৫৪০ হেক্টর আম, সবজি ৭২৮ হেক্টর, ভূট্টা ১৩৯ হেক্টর, কলা ৪২ হেক্টর, মরিচ ৫১ হেক্টর, তিল ৫ হেক্টর, মুগ ১৪ হেক্টর পাত ১০ হেক্টর আক্রান্ত হয়েছে। রংপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালকব মোহাম্মদ আলী বলেন ঝড়ে আমের  ক্ষতি হয়েছে বেশি। এছাড়া ২ হাজার ৫৫২ হেক্টর বোরোসহ অন্যান্য ফসল ঝড়ে আক্রান্ত হয়েছে।