দিনাজপুর সদর উপজেলায় এক দম্পতি করোনায় আক্রান্ত \ এ নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা ৫৮ জন হলো \ ৯ জন সুস্থ \ একজনের মৃত্যু

দিনাজপুর সদর উপজেলায় এক দম্পতি করোনায় আক্রান্ত \ এ নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা ৫৮ জন হলো \ ৯ জন সুস্থ \ একজনের মৃত্যু

দিনাজপুর সদর উপজেলায় এক দম্পতি করোনায় আক্রান্ত \ এ নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা ৫৮ জন হলো \ ৯ জন সুস্থ \ একজনের মৃত্যু


এএনবি মাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর প্রতিনিধি ঃ দিনাজপুর সদর উপজেলায় গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে এক দম্পতি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৫৮ জনে পৌঁছলো। আক্রান্ত দু’জন ঢাকা ফেরত স্বামী-স্ত্রী। আক্রান্ত হওয়ার আগে তারা দু’জনই হোম কোয়ারেন্টাইনে ছিল।  
দিনাজপুর সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুল কুদ্দুস বহস্পতিবার (১৩ মে) রাত ৯টায় গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে এক দম্পতির করোনায় আক্রান্তের খবরটি নিশ্চিত করেন। আক্রান্ত দম্পতি সদর উপজেলার শশরা ইউনিয়নের বাসিন্দা বলে জানান তিনি। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৫৮ জন হলো। আক্রান্ত ৫৮ জনের মধ্যে ৪৩ জন পুরুষ, ১২ জন নারী ও শিশু ৩ জন। 
সিভিল সার্জন জানান, ১৪ মে বৃহস্পতিবার ল্যাব হতে ১৩১টি নমুনার ফলাফল পাওয়া গেছে। এর মধ্যে দুইজনের নমুনায় করোনা পজিটিভ ও বাকী ১২৯টি নমুনার ফলাফল নেগেটিভ এসেছে। এ নিয়ে দিনাজপুর জেলায় করোনায় (কোভিট-১৯) প্রমানিত রোগির সংখ্যা ৫৮ জন হলো। 
তিনি জানান, এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১১ জন। যার মধ্যে সদর উপজেলায় ৪ জন, ফুলবাড়ীতে একজন, নবাবগঞ্জে ৩ জন, পার্বতীপুরে একজন, কাহারোলে একজন ও বোচাগঞ্জ উপজেলায় একজন। হোম আইসোলেশনে রয়েছেন ৩৯ জন। প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে রয়েছেন ৩ জন, হাসপাতালে ভর্তি করা রয়েছে ৪ জনকে ও একজনের মৃত্যু হয়েছে। 
সিভিল সার্জন জানান, আক্রান্তদের মধ্যে সদর উপজেলায় ১৬ জন (মৃত একজনসহ), কাহারোলে ৭ জন, বিরলে ৫ জন, বোচাগঞ্জে ৪ জন, পার্বতীপুরে ৫ জন, ফুলবাড়ীতে একজন, নবাবগঞ্জে ৪ জন, হাকিমপুরে দুইজন, বিরামপুরে ৪ জন, ঘোড়াঘাটে ৪ জন, চিবিরবন্দরে একজন ও বীরগঞ্জ উপজেলায় ৫ জন রয়েছে। তবে খানসামা উপজেলা এখনো করোনামুক্ত রয়েছে।
তিনি আরো জানান, এ পর্যন্ত ১৭৫৫টি নমুনা পরীক্ষার জন্য ল্যাবেরটরীতে প্রেরণ করা হয়েছে। এর মধ্যে ফলাফল এসেছে ১৫৩৬টি নমুনার। এছাড়া ১৪ মে বৃহস্পতিবার ১২৭টি নমুনা পরীক্ষার জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজের আরটি পিসিআর ল্যাবেরটরীতে প্রেরণ করা হয়েছে। 
এদিকে গত ২৪ ঘন্টায় ১২৩ জনসহ এ পর্যন্ত ৬৯০৯ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে। এ পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৫৩৬১ জন এবং বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন ১৫৪৮ জন। এ পর্যন্ত প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে প্রেরণ করা হয়েছে ২২৪ জনকে এবং প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন হতে ছাড় পেয়েছেন ১৫৯ জন। বর্তমানে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৬৫ জন। 
উল্লেখ্য, দিনাজপুরে গত ১৫ এপ্রিল মঙ্গলবার প্রথম ৭ জন করোনা রোগি শনাক্ত হয়। ১৬ এপ্রিল বুধবার একজন, ১৭ এপ্রিল বৃহস্পতিবার একজন, ১৮ এপ্রিল শুক্রবার একজন, ২০ এপ্রিল রবিবার একজন, ২১ এপ্রিল মঙ্গলবার দুইজন, ২৫ এপ্রিল শনিবার একজন, ২৭ এপ্রিল সোমবার হাকিমপুরে একজন, ২৯ এপ্রিল বুধবার ঘোড়াঘাটে একজন, ৩০ এপ্রিল বৃহস্পতিবার হাকিমপুর উপজেলায় আরো একজন, ২ মে শনিবার কাহারোলে ৩ জন, ৩ মে রবিবার পার্বতীপুরে একজন, ৫ মে মঙ্গলবার ৭ জন (কাহারোলে ৩ জন, পার্বতীপুরে ৩ জন ও নবাবগঞ্জ উপজেলায় একজন), ৬ মে বুধবার দিনাজপুর সদর উপজেলায় পৌর শহরে দুইজন, ৭ মে বৃহস্পতিবার ৫ জন, ৮ মে শুক্রবার বিরল উপজেলায় দুইজন, ৯ মে শনিবার বিরামপুর উপজেলায় ৩ জন, ১০ মে সোমববার ৯ জন (সদরে ৩, বীরগঞ্জে ৪ ও বোচাগঞ্জ উপজেলায় ২ জন), ১১ মে সোমবার বিরল উপজেলায় একজন, ১২ মে মঙ্গলবার দুইজন (সদরে একজন ও বিরামপুর উপজেলায় একজন), ১৩ মে বুধবার ৩ জন (বিরলে দুইজন ও বীরগঞ্জে একজন) ও সর্বশেষ ১৪ মে বৃহস্পতিবার দিনাজপুর সদর উপজেলায় আরো দুইজন (এক দম্পতি) করোনা আক্রান্ত রোগি শনাক্ত হয়।