রংপুরের টিসিবিতে নেই বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ঘোষিত ২৫ টাকা কেজির পেয়াজ

রংপুরের টিসিবিতে নেই বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ঘোষিত ২৫ টাকা কেজির পেয়াজ

রংপুরের টিসিবিতে নেই বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ঘোষিত ২৫ টাকা কেজির পেয়াজ


এএনবি আসাদুজ্জামান আফজাল, রংপুর
দেশের বিভিন্ন স্থানে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ঘোষিত ২৫ টাকা কেজিতে পেয়াজ বিক্রি হলেও রংপুরে এখনও বরাদ্দ না আসায় কম মূল্যে পেয়াজ বিক্রি এখনও শুরু করতে পারেনি টিসিবি। তবে পেয়াজ বিক্রি করতে গ্রাহকদের চাহিদা থাকায় ডিলারদের অনেক কথা শুনতে হয়। পেয়াজ বিক্রি হচ্ছে কি না দেখতে বা খবর শুনতে নগরীতে টিসিবির ট্রাককে ঘিরে উৎসুক ক্রেতাদের প্রতিদিনই থাকছে ভীড়। আগামী সম্পাহেই পেয়াজ টিসিবিতে আসতে পারে বলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রংপুরের টিসিবি কর্মকর্তা সুজাদ্দৌলা। টিসিবি সূত্রে জানা গেছে রংপুর টিসিবি অফিস ক্রেতাদের সুবিধার্থে জনসমাগত স্থলের স্থানে এখন বিভিন্ন স্কুল মাঠে পণ্য বিক্রি করছে। সামাজিক দূরুত্ব বজায় রাখতে ও জনসমাগম কমাতে বিভিন্ন মোড় বাদ দিয়ে স্কুল মাঠ বা খোলা স্থানে পন্য বিক্রি করা হচ্ছে। পেয়াজ কিনতে আসা রিকশাচালক লাল্টু মিয়া বলেন খুচরা ও পাইকারী বাজারে পেয়াজের দাম বেশি। টিভির খবর দেখি টিসিবির ২৫ টাকা মূল্যের পেয়াজ কিনতে এসেছি। এখন শুনছি টিসিবির পেয়াজ নেই। পেয়াজ কিনতে আসা গৃহিনী আশা মনি জানান টিসিবির যেসব পন্য গাড়িতে দেয়া হচ্ছে এগুলো ও প্রয়োজনীয় তবে সবকিছুর সাথে পেয়াজ প্রয়োজন থাকায় সকলেই এটি কিনতে চায়। দেশের অন্য জেরা বিভাগে বিক্রি হলেও রংপুরে বিক্রি শুরু হয়নি। বাণিজ্যমন্ত্রী নির্বাচনী এলাকায় পেয়াজ নেই জনগন একটু কম মূল্যে কিনতে আশা করতেই পারে। টিসিবির ডিলার আলমগীর হোসেন ও এম মিরু সরকার বলেন আমরা এখন ও পিয়াজ বিক্রি শুরু করিনি। টিসিবি আমাদের সরবরাহ করলে আমরা পেয়াজ বিক্রি শুরু করবো। পেয়াজ ট্রাকে থাকলে গ্রাহকরা উপকৃত হবে। রংপুরের টিসিবির অফিস প্রধান সুজাউদ্দৌলা জানানম সরকার পেয়াজের সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে এবং ন্যায্য মূল্যে নিশ্চিত করতে টিসিবির মাধ্যমে বিক্রয়ের ব্যবস্থা গ্রহন করেছে। শুকুবার ও শনিবার নগরীতে ১২ টি ট্রাক ও রোব থেকে বৃহস্পতিবার ২০ টি ট্রাক দিয়ে টিসিবি পরিচালনা করা হয়। এই অঞ্চলে পেয়াজের মূল্য এখনও কিছুরা কম থাকায় ২৫ টাকা মুল্যের পেয়াজ ্এখনও বরাদ্দ হয়নি। তবে আগমী সম্পাহে টিসিবিতে পেয়াজের বরাদ্দ সংুক্ত হবে পারে াজার পরিস্তিতি স্বাভাবিক রাখতে গ্রাহকদের চাহিদা মাথায় রাখছে টিসিবি। সরকার এসব বিষয়ে খুবই আন্তরিক।